পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণের ফলে বদলে যাচ্ছে দুশ্যপট।। মানুষের দীর্ঘ দিনের কষ্টের সমাপ্তি ঘটছে – Amader Prokawshal
বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১০:৩২

শিরোনামঃ

পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণের ফলে বদলে যাচ্ছে দুশ্যপট।। মানুষের দীর্ঘ দিনের কষ্টের সমাপ্তি ঘটছে

শাহিন বাবু

মোবারক মিয়ার চোখেমুখে এখন অনেক প্রশান্তি। দীর্ঘ দিনের কষ্টের সমাপ্তি ঘটেছে। ছোট্ট একটি ব্রিজের অভাবে কত ভোগান্তিই না পোহাতে হয়েছে এক সময়। কৃষি ক্ষেতে উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণে চরম দূভোর্গ লেগে থাকতো। বর্ষা মৌসুমে কষ্ঠটা ছিলো বেশি। সন্তানদের স্কুলে যাতায়াতে অনেক বেশি দুশ্চিন্তা হতো।পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলায় বসবাস তার। মিঠাগঞ্জ ইউপি এর তেগাছিয়া-জামাই নগর বাজার সড়কে তেগাছিয়া খালের উপর ৪১ মিটার দীর্ঘ আরসিসি গার্ডার ব্রিজটি ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর সমাপ্ত হয়। আর তাতেই এলাকার মানুষের জীবনের দৃশ্যপট অনেকটাই পাল্টাতে থাকে। কাজ শুরু হয় এক বছর আগে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ (১ম সংশোধিত) (সিআইবিআরআর) আওতায় কৃষি ও অকৃষি পণ্যের উৎপাদন ও বিপণন এবং প্রকল্প এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের সুবিধার্থে পরিবহন নেটওয়ার্কের সার্বিক উন্নতি;শারীরিক প্রতিবন্ধকতা দূর করা এবং গ্রামীণ পরিবহন ও বিপণনের খরচ কমানো এবং স্বল্পমেয়াদী এবং দীর্ঘমেয়াদী উভয় ধরনের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করা প্রকল্পের প্রধান উদ্দেশ্য ছিলো। সমগ্র বাংলাদেশের ৮৪টি জেলা এবং ৯8টি উপজেলায় ১৩২টি (৪১০৪৩ মিটার) সেতু নির্মাণ কাজ “পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ” প্রকল্পে অন্তর্ভূক্ত আছে। প্রকল্প অফিসে ২৬ জন লোকবল নিয়োগ করা হয়েছে। বাজেটে ধরা হয়েছে ৬৪৫৭১৯ লাখ টাকা ২০১৭ সালের জানুয়ারীতে প্রকল্প যাত্রা শুরু করে এবং সমাপ্তি ২০২৪ সালের জুনে।

মহামারি করোনার কারণে টানা দু’বছর কাজের গতি থেমে যায়। তারপর হঠাৎ করে রড, পাথর ও সিমেন্টের দাম বেড়ে যাওয়ায় কাজের গতি মন্থর হয়ে পড়ে। ঠিকাদাররা অনেক ক্ষেত্রে কাজ বন্ধ করে রাখে। এতে করে প্রকল্প সময় ও ব্যয় যেমনটি বেড়েছে তেমনি নানান সমস্যার মুখোমুখি দাড়াতে হয়েছে। সে ছিলো এক নতুন অভিজ্ঞতা।

প্রকল্প পরিচালক মনজুরুল আলম সিদ্দিকী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর টেকসই উন্নয়ন নীতি এবং বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়গুলো বিবেচনায় নদীর পানি প্রবাহ স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে যাতে নদীর নাব্যতা ও জলজ জীব বৈচিত্র বিনিষ্ট না হয় এবং নদীতে বড় বড় নৌযান চলাচলে কোনরূপ বিঘ্ন না হয় সে বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে বিআইডাব্লিউটিএ’র চাহিদা মোতাবেক সেতুর ভার্টিক্যাল ক্লিয়ারেন্স বৃদ্ধি সহ লং স্প্যান করা হচ্ছে। ইহা ছাড়াও দীর্ঘ সেতুর স্থান ও পরিবেশগত দিকগুলো পুংখানুপুংখানুরূপে বিশ্লেষণ করে সেতু নির্মাণের উপযুক্ততা পরিবেশ সহায়ক হলে সেতুগুলোর নির্মাণ স্থান চুড়ান্ত করা হয়। তিনি আরও বলেন পিপিএ ২০০৬, পিপিআর ২০০৮ ও ইজিপি পদ্ধতি অনুসরণ করে ক্রয় কার্যক্রম পরিচালনা হচ্ছে এবং কাজের স্পেসিফিকেশন যথাযথভাবে অনুসরণ করে নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ প্রকল্প কর্তৃক গৃহীত সেতু নির্মাণ কর্মসূচী বাস্তবায়ন কার্যক্রম সম্পন্ন হলে প্রকল্প এলাকার গ্রামীণ জনপদের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা গতিশীল হবে। আর্থ-সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে প্রকল্পটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

এ প্রকল্প বাস্তবায়নে চ্যালেঞ্জ সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে প্রকল্প পরিচালক আমাদের প্রকৌশলকে  বলেন, প্রকল্পটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সমাপ্তির লক্ষ্যে সময়ানুপাতিকভাবে ভৌত অগ্রগতি অর্জিত না হওয়ার ক্ষেত্রে বৈশ্বিক করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব, হঠাৎ করে নির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ায় কাজের গতি মন্থর হয়ে পড়া, আরডিপিপি’র সংস্থান অনুযায়ী অর্থ বরাদ্দ না পাওয়া এবং বৃহৎ সেতুর (দৈর্ঘ্য ১০০ মিটারের উর্দ্ধে) ক্ষেত্রে যোগ্য দরদাতার স্বল্পতা থাকায় একাধিক বার দরপত্র আহবান করতে হচ্ছে। এছাড়া প্রকল্পটির প্রয়োজনীয় ভূমি অধিগ্রহণের জন্য মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক অনুমোদন গ্রহণ করার পর সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে ভূমির সম্ভাব্য পরিমাণ ও ব্যয় নির্ধারণ করে অধিগ্রহণ প্রক্রিয়ার বিভিন্ন ধাপ অতিক্রম করতে অনেক সময় প্রয়োজন হচ্ছে।

এ প্রকল্পের আওতায় ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার নূরপুর জিসি হতে কালীবাড়ী আরএন্ডএইচ সড়কে (সিমনা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া)- বিজয়নগর অংশে তিতাস নদীর উপর ৩১৫ মিটার দীর্ঘ পিএসসি গার্ডার ব্রিজের কাজ চলতি বছরের ১১ নভেম্বর শেষ হবে, যা শুরু হয়েছিলো ২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলাধীন নূরপুর জিসি হতে কালীবাড়ী আরএন্ডএইচ সড়কে (সিমনা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া)- বিজয়নগর অংশে লসকারখাল নদীর উপর ২৪০ মিটার (সংশোধিত দৈর্ঘ্য ৩০৮ মিটার)পিএসসি গার্ডার ব্রিজের কাজ ৯৯% সম্পন্ন হয়েছে। ব্রীজ ২টি একই সড়কের উপর অবস্থিত। সড়কটি শেখ হাসিনা সড়ক নামে নামকরণ করা হয়েছে, যা বিজয়নগর উপজেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা সড়ক। ব্রীজ ২টি নির্মিত হলে বিজয়নগর ও আখাউড়া উপজেলার জনসাধারন এবং স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা শহরের স্কুল কলেজ এবং অসুস্থ রোগীরা উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা শহরের হাসপাতালে দ্রুত এবং সহজে যাতায়াত সম্ভব হবে। এছাড়াও অত্র এলাকার সাথে আখাউড়া স্থলবন্দর, পার্শ্ববর্তী মাধবপুর উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ন ও রাজধানী ঢাকাসহ জেলা সদরে যোগাযোগের জন্য উল্লেখিত সড়কটিই একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম।

এছাড়া কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলাধীন কুমারখালী (লালন বাজার) বসগ্রাম জিসি ভায়া পান্টি জিসি ভায়া হরিনারায়নপুর জিসি ভায়া কুসলিবাসা হাট সড়কে গড়াই নদীর উপর ৬৫০ মিটার দীর্ঘ পিএসসি গার্ডার ব্রিজের কাজ চলতি বছরের ২৫ অক্টোবর শেষ হবে, যা শুরু হয়েছিলো ২০১৯ সালের ১লা জুলাই। নির্মানাধীন ব্রীজটি কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলা ও জেলা শহর এবং নদীর ওপর প্রান্ত (দক্ষিন প্রান্তে) ৫ (পাঁচ) টি ইউনিয়নসহ পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহ ও মাগুরা জেলাকে সংযুক্ত করেছে। সেতুটি নির্মান করা হলে উপজেলা সহ জেলার প্রায় ৬০/৭০ হাজার শ্রমজীবি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সরাসরি উপকৃত হবে এবং একই সাথে কুষ্টিয়া জেলা শহর, ঝিনাইদহ জেলা শহর, মাগুরা জেলা শহর ও পাঁচটি ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগ স্থাপন হবে। সেতুটি নির্মিত হলে আঞ্চলিক ভাবে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ এইসব এলাকার অর্থনৈতিক উন্নয়নে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে।

সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলা হেডকোয়ার্টার-গাড়াবাড়ি আরএন্ডএইচ ভায়া বড়হর ইউপি, তেঁতুলিয়া হাট সড়কে ফুলজোড় নদীর উপর ২৯৪ মিটার দীর্ঘ পিএসসি গার্ডার ব্রিজের কাজ ৯৭% সম্পন্ন হয়েছে।ব্রিজটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশিত ব্রিজ। ব্রীজটি নির্মিত হলে উল্লাপাড়া উপজেলার সাথে কামারখন্দ, বেলকুচি, রায়গঞ্জ ও সদর উপজেলার সাথে সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হবে। ব্রীজটির পূর্ব পাড় কামারখন্দ উপজেলা এবং পশ্চিমপাড় উল্লাপাড়া উপজেলার সাথে যুক্ত করেছে। কামারখন্দ উপজেলার সাথে ৮কিঃমিঃ এবং জেলা সদরের সহিত ১২কিঃমিঃ দূরত্ব কমে যাবে। কামারখন্দ উপজেলা হেড কোয়াটার নলকা বিশ্বরোড এর সহিত সংযোগ স্থাপন করবে এবং এলাকার জনসাধারণ ও স্কুল কলেজগামী ছাত্র/ছাত্রীদের চলাচলে সুবিধাসহ কৃষক ও তাঁতীগন তাহাদের উৎপাদিত পন্য বাজার জাত করণে সুবিধা পাবে। ফলে উক্ত এলাকার জনসাধারনের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন সহ জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন ঘটবে। উল্লেখ্য, এ প্রকল্পের আওতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত/নির্দেশিত সেতু রয়েছে ৯টি।

এদিকে পটুয়াখালী জেলার দশমিনা উপজেলার অন্তর্গত আলীপুর ইউপিসি হতে কোটখালী বাজার ভায়া কালামিয়ার হাট (দশমিনা অংশে) সড়কে ৯০ মিটার চেইনেজে সুতাবাড়িয়া নদীর উপর ভায়াডাক্ট সহ ৪২৬ মিটার দীর্ঘ পিএসসি গার্ডার ব্রিজের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। সমাপ্তির তারিখ ধরা হয়েছে চলতি বছরের আগষ্ট। যার কাজ শুরু হয় ২০২০ সালের একই সময়ে। উল্লেখিত সড়কটির দশমিনা উপজেলাধীন একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন সড়ক। ব্রীজটি নির্মিত হলে অত্র এলাকার সাথে আলীপুর, দশমিনা, রনগোপালদী ইউনিয়ন, গলাচিপা উপজেলা কলাগাছিয়া, বকুলবাড়িয়া ইউনিয়ন সহ গলাচিপা উপজেলা, বাউফল উপজেলা ও দুমকি উপজেলা সদর এবং পটুয়াখালী, বরগুনা ও বরিশাল জেলাসহ রাজধানী ঢাকার সাথে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ স্থাপন হবে। এক তথ্যে দেখা গেছে, ৩৯ টি জেলার মধ্যে ৯০ টি স্কিম চলমান রয়েছে এবং ১৯ টি স্কিম ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

 

পল্লী সড়কে ১৩০টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সেতু নির্মাণ করে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে, কৃষি উৎপাদন বাড়াতে এবং প্রকল্প এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১৭ সালের ১০ জানুয়ারি প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদিত হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পটির মূল খরচ ৩ হাজার ৯২৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। প্রথম সংশোধনীতে ২ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা খরচ বাড়িয়ে ৬ হাজার ৪৫৭ কোটি ১৯ লাখ টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। অর্থাৎ ৬৪ দশমিক ৪৪ শতাংশ খরচ বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

জানা গেছে, ১৩০টি (২৬ হাজার ৭৪০ মিটার) সেতু নির্মাণে মূল খরচ বরাদ্দ আছে ৩ হাজার ৩৬১ কোটি ২৩ লাখ টাকা। সংশোধনে করে ১৩২টি সেতু (৪১ হাজার ৪৩ মিটার) নির্মাণে খরচ ৫ হাজার ৫৩১ কোটি ৬ লাখ টাকা প্রস্তাব করা হয়েছে। মূল সেতু নির্মাণ খাতে খরচ বাড়ছে ২ হাজার ১৬৯ ৮৩ লাখ টাকা।

১৫ হাজার ৬৫০ মিটার নদী শাসনে মূল খরচ বরাদ্দ আছে ১৩৯ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা। সংশোধনে করে নদী শাসনের পরিমাণ কমিয়ে করা হচ্ছে ৬ হাজার ৭২১ মিটার এবং খরচ ধরা হয়েছে ১২৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা। অর্থাৎ, ৮ হাজার ৯২৯ মিটার নদী শাসন কমছে এবং খরচ কমানো হচ্ছে ৯ কোটি ৫৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

৫৮ দশমিক ৫১ কিলোমিটার অ্যাপ্রোচ/সংযোগ সড়ক নির্মাণে খরচ বরাদ্দ আছে ১৪৬ কোটি ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। সংশোধনীতে ৬৭ দশমিক ২৩৪ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে ৩১২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা খরচের প্রস্তাব করা হয়েছে। অর্থাৎ অ্যাপ্রোচ/সংযোগ সড়ক ৮ দশমিক ৭২৪ কিলোমিটার বাড়ছে এবং খরচ বাড়ছে ১৬৬ কোটি ৪৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

১৫০ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণের জন্য বরাদ্দ আছে ১০০ কোটি টাকা। সংশোধনীতে ১৭০ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ৩২৫ কোটি টাকা খরচের প্রস্তাব করা হয়। অর্থাৎ, ভূমি অধিগ্রহণ বাড়ছে ২০ হেক্টর এবং খরচ বাড়ছে ২২৫ কোটি টাকা। প্রকল্প সংশোধনের কারণ ব্যাখ্যা করে পরিকল্পনা কমিশনকে সে সময় এলজিইডি বলেছে, বিআইডব্লিউটিএ’র যাচাই করা ন্যূনতম ভার্টিক্যাল অ্যান্ড হরিজন্টাল ক্লিয়ারেন্স এবং হাইড্রোলজিক্যাল অ্যান্ড মরফোলজিক্যাল স্টাডি রিপোর্ট বিবেচনায় সরেজমিনে সেতুর স্থান পরিদর্শন করে ডিজাইন চূড়ান্ত করা এবং চূড়ান্ত করা ডিজাইন অনুযায়ী সেতুর দৈর্ঘ্য মূল ডিপিপির প্রস্তাবিত দৈর্ঘ্যের চেয়ে বেশি হওয়ায় ব্যয় বাড়ছে। আধুনিক নির্মাণ কৌশলের লং স্প্যান সেতু নির্মাণ ব্যয় বেশি বিধায় প্রকল্পের সংশোধিত প্রস্তাবে ব্যয় বাড়ছে।

২০১৫-১৬ অর্থবছরের রেট শিডিউল অনুযায়ী ডিপিপিতে অন্তর্ভুক্ত সেতুগুলোর ব্যয় প্রাক্কলন করা হয়েছিল। ইতোমধ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরের রেট শিডিউল কার্যকর হওয়ার কারণে আরডিপিপিতে অন্তর্ভুক্ত সেতুগুলোর হালনাগাদ রেট শিডিউল অনুযায়ী ব্যয় প্রাক্কলন করা।

ভূমি অধিগ্রহণ আইন অনুযায়ী ভূমির ক্ষতিপূরণ মূল্য বৃদ্ধি ও বাস্তব চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ভূমি অধিগ্রহণের পরিমাণ ও ব্যয় এবং প্রকল্পের মেয়াদ তিন বছর বাড়ার ফলে প্রকল্পের জনবল ও পরামর্শকের বেতন-ভাতাদিও বেড়ে যায়।

সংশোধিত প্রস্তাবে সেতুর দৈর্ঘ্য বৃদ্ধি পাওয়ার ১০০ মিটারের বেশি সেতুগুলোর স্টাডি কাজ সম্পন্ন করে পরিবেশ অধিদফতর থেকে পরিবেশগত ছাড়পত্র, বিআইডব্লিউটিএ থেকে নেভিগেশনাল ক্লিয়ারেন্স সম্পন্ন করে সেতুর ডিজাইন ও প্রাক্কলন চূড়ান্ত করা এবং ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে অতিরিক্ত সময় প্রয়োজন। তাছাড়া বৃহৎ সেতুর (১০০ মিটারের বেশি) ক্ষেত্রে যোগ্য দরদাতার স্বল্পতা থাকায় একাধিকবার দরপত্র আহ্বান করতে হচ্ছে। এসব কারণে বাস্তবায়ন মেয়াদ তিন বছর বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছিলো।

এ বিষয়ে পরিকল্পনা কশিমনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য মো. জাকির হোসেন আকন্দ আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে বলেছিলেন, ‘পল্লী অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সেতু নির্মাণ করে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, কৃষি উৎপাদন বাড়ানোতে সহায়তা প্রদান এবং আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের লক্ষ্যে মূল প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়। প্রকল্পের কাজ সুষ্ঠুভাবে সমাপ্তির লক্ষ্যে প্রস্তাবিত প্রথম সংশোধন অনুমোদনযোগ্য।’

 

 

 

পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণের ফলে বদলে যাচ্ছে দুশ্যপট।। মানুষের দীর্ঘ দিনের কষ্টের সমাপ্তি ঘটছে

জুলাইয়ে রেকর্ড ২.০৯ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স এলো দেশে

ইউজিসির খসড়া নীতিমালা:  সপ্তাহে ১৩ ঘণ্টা ক্লাস ২৭ ঘণ্টা গবেষণা করবেন শিক্ষকরা

জ্যাকেট স্ক্যান করে যেভাবে চেনা যাবে আসল ডিবি

হার্ট অ্যাটাক এড়াতে কী করবেন ?

পেটের মেদ কমাতে চান ? 

কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করুন এখনি

ভিটামিন বি ১২ ঘাটতি ?   নো টেনশন…

দাঁত সুস্থ্য সুন্দর রাখতে ৫ খাবার

ওষুধ খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শুয়ে পড়বেন না

কুমিল্লা জেলায় এলজিইডির বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কাজের অগ্রগতি বিষয়ক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

রেড মিট :: মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি কেন ?

গ্রামে কোরবানির মাংস বিতরণ করার জন্য মানুষ পাইনি

ডিএমপির ডিবি প্রধান হলেন হারুন অর রশিদ

রাজধানীতে নারী সাংবাদিকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

ওয়ানডে সিরিজ বাংলাদেশের

ঈদের চতুর্থ দিনেও রাজধানী ছাড়ছে  মানুষ

যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতে নতুন রাষ্ট্রদূত

৩০ পেরিয়ে মনের মানুষ খুঁজে পাবেন যেভাবে

নারী-পুরুষের মধ্যে কার চুলকানি বেশি?

চাদঁপুরের হাইমচরে চেয়ারম্যান কর্তৃক জেলেদের চাল পাচারকালে চালসহ আটক ১

রাজধানী ডেমরার হাজী বাদশা মিয়া রোডে সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ মনিরের উৎপাতে অতিষ্ট এলাকাবাসী

গ্রাহকের টাকা নিয়ে নয়-ছয় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের

প্রবাসীদের অর্থায়নে ঈদ উপহার বিতরণ

সেহরির সময় হলেই খাবারের ব্যাগ হাতে যুব অধিকার পরিষদ।

ডেমরায় সন্ত্রাসী কায়দায় বাড়িতে হামলা ও দোকান লুটপাটঃ গ্রেফতার ৩

ঢাকা-০৫ আসনে একাধিক প্রার্থীঃআলোচনার শীর্ষে নেহরীন মোস্থফা দিশি

আগে পণ্য পরে টাকা: স্বাগত জানাল কিউকম

ডেমরায় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় অজ্ঞাতনামা অটোরিকশা চালক নিহত

ডেমরায় হেলথ কেয়ার হসপিটালে র‍্যাবের অভিযান

ডেমরায় হত্যাচেষ্টা মামলার মূল নায়ক প্রেমিক ফাহাদকে ধরতে তৎপর প্রশাসন,মিলছে না খোঁজ

নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ দলের স্পন্সর ‘ইভ্যালি’

দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন ডেমরা থানার তদন্ত অফিসার রফিকুল ইসলাম

নূর নবীকে ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী

দীর্ঘ দেড় যুগ পর চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা

ডিএসসিসির ৬৪,৬৫ ও ৬৬ নং ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলরের টেন্ডার বানিজ্য,ভোগান্তির শিকার এলাকাবাসী

দেড় যুগ পর অবশেষে ডেমরা থানা ছাত্রলীগের প্রতিটি ওয়ার্ডের সফল কমিটি ঘোষিত

বরপা পিজিওন ক্লাবের পূর্নমিলণী ও সভা অনুষ্ঠিত

বিজয়ের বর্ণিল সাজে সেজেছে কবি নজরুল কলেজে

ছেলে ও ছেলের প্রেমিকাকে হত্যা করল বাবা!


উপরে