একটি বিশেষ ক্যাডার সব কুক্ষিগত করে রেখেছে: আইইবি

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে যাওয়া প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা-গ্রেপ্তারের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে।

ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, রোজিনা ইসলামকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত এবং দীর্ঘ প্রায় ছয় ঘণ্টা আটক রাখার পর তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি নথি চুরির অপবাদে মামলা দেওয়া কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। তারা অবিলম্বে তাঁকে মুক্তি ও এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে।

আইইবির নির্বাহী কমিটি ও কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের পক্ষে আইইবির সম্মানী সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাদাৎ হোসেনের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আইইবি কৃত্য পেশাভিত্তিক প্রশাসন ও মন্ত্রণালয় গঠনের বিষয়ে প্রকৌশলী-কৃষিবিদ-চিকিৎসক সমন্বয়ে গঠিত প্রকৃচির মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে যুগপৎ আন্দোলন করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ, এখানে যে যে কাজের উপযুক্ত, তাঁকে দিয়ে সে কাজ করাতে হবে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, একটি বিশেষ ক্যাডার সব কুক্ষিগত করে রেখেছে। যার ফলে এই ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা নিয়মিত ঘটেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে সব দিক দিয়ে সমৃদ্ধির সোপানে নিয়ে যেতে যেভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, একটি বিশেষ গোষ্ঠীর কারণে তা প্রায়ই প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছে।

করোনার এই সময়ে প্রকৌশলী-কৃষিবিদ-চিকিৎসক এবং গণমাধ্যমের কর্মীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু তাঁদের সেভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। বর্তমান কার্যক্রম দেখে মনে হচ্ছে, দেশ আগের তুলনায় আরও বেশি আমলানির্ভর হয়ে যাচ্ছে এবং তাঁদের দৌরাত্ম্য আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। সব জায়গাতেই তাঁরা হস্তক্ষেপ করছেন। এটি অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। তা না হলে দেশপ্রেমিক, সৎ, নিবেদিতপ্রাণ অন্য পেশার লোকেরা তাঁদের দ্বারা নিগৃহীত হতেই থাকবেন।

     More News Of This Category

Our Like Page